সদ্য সংবাদ
Home / রাজনীতি / ছাত্রলীগ নিয়ে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র চলছে : আব্দুর রহমান

ছাত্রলীগ নিয়ে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র চলছে : আব্দুর রহমান

ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দেয়ার সংবাদ পরিবেশন রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের অংশ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তবে কমিটি ভেঙে দেয়ার মত কোনো নির্দেশনা দেননি।

আব্দুর রহমান বলেন, ছাত্রলীগের নানা কর্মকাণ্ডে প্রধানমন্ত্রী অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তবে এই বিষয়টি গণমাধ্যমে আসার মত বিষয় নয়। নিজস্ব ফোরামে তিনি তার ক্ষোভ ব্যক্ত করেছেন। তাদেরকে যে উদ্দেশ্যে নেতৃত্বে এনেছিলেন সেই কাথা তিনি বলেছেন। কিন্তু মিডিয়া বলেছে ছাত্রলীগের কমিটি তিনি ভেঙে দিতে বলেছেন!

আওয়ামী লীগের এই নেতা প্রশ্ন রেখে বলেন, ছাত্রলীগের মালিক শেখ হাসিনা।তিনিই ছাত্রলীগের দেখভাল করেন। তিনি কাকে কমিটি ভেঙে দিতে বলবেন? আমি নিজে ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলাম তবে ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দেয়ার বিষয়টি আমার জানা নাই।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কাউকে আক্রমণ করেছে বলে আমার জানা নেই। তারপরেও বর্তমান কমিটি সম্পর্কে যে ধরণের কথা বার্তা গণমাধ্যমে আসছে এটাকে ডিফেন্ড করা বা তাদের পক্ষে অবস্থান নেয়ার কোন যৌক্তিকতা নাই। সেই মানসিকতা আমি নিজেও ধারণ করি না। তাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এসেছে তা আমলে নেয়ার মত। এই ধরণের অভিযোগ বিগত কমিটিগুলোর বিরুদ্ধে ঢের ঢের ছিল। তারা যে কাজগুলো করেছে সেগুলো ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ, সে বিষয়ে আমাদের কোন সন্দেহ নাই। তাই বলে তাদের কমিটি ভেঙে দিতে হবে? এ বিষয়গুলো যখন মিডিয়া সামনে নিয়ে আসে তখন আমার মনে একটা প্রশ্ন উঠে এই সামগ্রিক বিষয়গুলো কোন রাজনৈতিক পরিকল্পনার অংশ থেকে বলা হচ্ছে না তো?

উল্লেখ্য, শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) দলের স্থানীয় সরকার ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতাদের কার্যক্রমে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এরপরই ছড়িয়ে পড়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ভেঙে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। তবে বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতা নিশ্চিত করেছেন, কমিটি ভেঙে দেয়ার মতো কোনো নির্দেশ দেননি প্রধানমন্ত্রী। যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করতে না পারায় এবং সাম্প্রতিক বেশ কিছু কর্মকাণ্ডে তিনি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের বিষয়ে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন।

২০১৮ সালের ১২ ও ১৩ মে সম্মেলন করেও কমিটি করতে ব্যর্থ হয় ছাত্রলীগ। পরে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের কমিটি গঠনে দিকনির্দেশনা দেন। সে বছরের ৩১ জুলাই রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে সভাপতি ও গোলাম রাব্বানীকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়। চলতি বছরের ১৩ মে সম্মেলনের এক বছরের মাথায় ৩০১ সদস্য পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার করে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক।

About bdlawnews24

Check Also

করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচানোর জন্য ভবিষ্যতে আরও কঠোর পদক্ষেপ

করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচানোর জন্য ভবিষ্যতে আরও কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com