সদ্য সংবাদ
Home / দেশ জুড়ে / দুষ্ট গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভালো: কাদের

দুষ্ট গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভালো: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অপকর্ম-অনিয়ম যারা করে, তারা দলে না থাকাই ভালো।

চাঁদাবাজির অভিযোগে ছাত্রলীগের নেতৃত্বে পরিবর্তন এবং যুবলীগের অভিযোগবিদ্ধ নেতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার উদ্যোগের মধ্যেই ওবায়দুল কাদেরের এমন মন্তব্য এলো।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি বলেন, “যারা অপকর্ম করে, অনিয়ম করে, এ ধরনের নেতা কর্মীদের দলের ভেতরে না থাকাই মনে করি যথার্থ এবং দুষ্ট গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভালো বলে চিন্তা ভাবনা করছি।”

সরকারের সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, দলের কেউ যখন ‘অপকর্ম’ করে, তখন তা সরকারের উন্নয়ন অর্জন ‘ম্লান করে দেয়’। একটি ‘খারাপ আচারণের’ কারণে ১০টি ভালো কাজ ম্লান হয়ে যায়।

“রুলিং পার্টিতে আমাদের মত দেশে একটি সমস্যা থেকেই যায়, সেটি হচ্ছে কিছু আগাছা-পরগাছা, এসব সুবিধাবাদি স্রোতের সাথে… এরাই বেশিরভাগ সময় সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।”

ছাত্রলীগের নেতৃত্বে পরিবর্তন এসেছে এবং যুবলীগও যে ট্রাইবুন্যাল গঠনের কথা বলেছে, সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “এখানে স্পষ্ট বিষয়টা হচ্ছে, সরকার ও দলের ইমেজটা ক্লিন হওয়া দরকার। প্রধানমন্ত্রী ক্লিন ইমেজের জন্য সারা বিশ্বে প্রশংসিত।”

সম্প্রতি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি ঘটনায় চাঁদাবাজির অভিযোগ ওঠার প্রেক্ষাপটে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষুব্ধ হলে ক্ষমতাসীন দলের ভাতৃপ্রতীম সংগঠন ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

অভিযোগ রয়েছে, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দরপত্রের কাজ থেকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দুই কোটি টাকা চাঁদা দাবি করলেও পরে এক কোটি টাকা দেওয়ার বিষয়ে চূড়ান্ত হয়েছিল।

তবে শোভন এবং রাব্বানী উপাচার্য ফারজানা ইসলামের কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

‘অপকর্ম’ যেই করুক, তাকে শাস্তি পেতে হবে মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, “গোয়েন্দা সংস্থাকেও বলা হয়েছে তথ্য দেওয়ার জন্য, কোথাও অপকর্ম হলে কাউকে যেন ছাড় দেওয়া না হয়, সে দলে যত শক্তিশালীই হোক। ভালো কাজে পুরস্কার ও খারাপ কাজে তিরস্কার থাকবে।”

ছাত্রলীগের ঘটনা ‘হতাশ করেছে’ মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “ছাত্রলীগের বিষয়টা নজিরবিহীন ঘটনা ঘটল, অনেক যাচাই বাছাই করে কমিটি দিয়েছিল… আমি ঘোষণা দিয়েছি ভালো রেজাল্ট ও ভালো রিপোর্ট দেখে। এত অনিয়ম ও শৃঙ্খলাভঙ্গের বিষয় এটা… আসলে হতাশ করেছে। সে কারণে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা তাকে নিতে হয়েছে এবং সবাই সমর্থন দিয়েছি। আশা করি এটা অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হবে।”

অনিয়মে মন্ত্রী-এমপিকেও ছাড় দেওয়া হয়নি দাবি করে সেতুমন্ত্রী বলেন, “সাংগঠনিকভাবে শাস্তি আছে, প্রশাসনিকভাবেও শাস্তি আছে। অপরাধ অপকর্ম করে কেউ পার পাবে না, এক্ষেত্রে সরকার বা দলের পক্ষ থেকে ছাড় নেই।”

যুবলীগের ক্ষেত্রেও ছাত্রলীগের মত কোনো সিদ্ধান্ত আসছে কিনা প্রশ্ন করলে ওবায়দুল কাদের বলেন, “যুবলীগ উদ্যেগে নিয়েছে, দেখি… আমরা পর্যবেক্ষণ করছি, তারা বিষয়টা কীভাবে নিচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী দৃষ্টান্ত স্থাপন করে পথ দেখিয়ে দিয়েছেন। প্রত্যেকে আপন করে শুদ্ধি অভিযান চালাতে পারে।”

দলে নতুন সাধারণ সম্পাদক হলে স্বাগতম’

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর দলের জাতীয় সম্মেলন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আগামীতে সাধারণ সম্পাদক পদে কোনো পরিবর্তন আসছে কিনা প্রশ্ন করলে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক বলেন, “জেনারেল সেক্রেটারি পদটি মূলত পার্টির সুপ্রিম নির্দেশনায় চলে, এখানে প্রার্থী হওয়ায় অধিকার সবার আছে, গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে হয়।”

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগকে ‘বিশাল ব্যাপার’ হিসেবে বর্ণনা করে কাদের বলেন, “অনেক কর্মী আজীবন ত্যাগ করে এই পদ পায়নি, আমি ভাগ্যবান মানুষ। একবার হয়েছি এটাই বিরাট ব্যাপার, আরেকবার আমি থাকব কিনা- নির্ভর করে নেত্রীর উপর, তিনি নতুন কিছু ভাবতে পারেন, নতুন মুখ চাইতে পারেন।

“আমাকে যদি বলেন যে ‘অন্য দায়িত্ব পালন কর’, আমার কোনো অসুবিধা নেই। তিনি যদি বলেন ‘থাকো’, আমি থাকব। তিনি যদি বলেন দায়িত্বে পরিবর্তন হবে, নতুন কোনো মুখ এলে স্বাগতম।”

ফখরুলকে আয়না দেখার পরামর্শ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গত রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, চাঁদাবাজির অভিযোগে শোভন-রাব্বানীকে ছাত্রলীগের নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া ক্ষমতাসীনদের দুর্নীতিরই স্বীকৃতি।

এর প্রতিক্রিয়ায় ওবায়দুল কাদের বলেন, “মির্জা ফখরুল প্রতিদিনই দুর্নীতি দুর্নীতি বলে চিৎকার করছেন। এটুকু বলতে চাই, এ সরকারের আমলে হাওয়া ভবনের মত লুটপাট দুর্নীতি হয়নি, আমাদের কোনো লুটপাটের হাওয়া ভবন নেই।”

কাদের বলেন, “দুর্নীতিতে পাঁচবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন একটা দল যখন এরকম বলে… হাস্যকর! হাসবো কি কাঁদবো ভেবে পাই না। দুর্নীতি লুটপাটের জন্য তাদের নেতাদের কি অবস্থা হয়েছে তা কি তারা চিন্তা করে না? আয়নায় নিজেদের চেহারাটা ভালো করে দেখে দুর্নীতির অভিযোগ আনুক। নিজেরা কি করে সেটা আগে দেখুন। তার প্রতি এ অনুরোধই করব।”

About bdlawnews

Check Also

মানবতার অনন্য নজির জননেতা মঞ্জুরুল আলম মোহন এর ‘সেবা’

এস আই সুমন,স্টাফ রিপোর্টারঃ বুধবার (২৮ এপ্রিল) সকাল ১১টায় বগুড়া পৌরসভার ১৯নং ওয়ার্ডের মানিকচক এবং …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com