সদ্য সংবাদ
Home / আইন আদালত / ফেসবুকে পরিচয়, নববধূকে অপহরণের ১৩ দিন পর উদ্ধার

ফেসবুকে পরিচয়, নববধূকে অপহরণের ১৩ দিন পর উদ্ধার

সিলেটের বিশ্বনাথে বাবার বাসা থেকে কোহিনুর আক্তার আশা (২১) নামের এক নববধূকে অপহরণের ১৩ দিন পর কিশোরগঞ্জ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ থানার শতরদরিয়া গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে শাওন মিয়ার বাড়ি থেকে নববধূকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় শাওন মিয়াকে (২১) গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ জানায়, কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ থানার শতরদরিয়া গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে শাওন মিয়ার সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় কোহিনুর আক্তার আশার। ১৩ দিন আগে বিশ্বনাথ থেকে অপহরণ করে কিশোরগঞ্জ নিয়ে যায় শাওন। এরপর সেখানে শাওন তাঁর নিজ বাড়িতে কোহিনুরকে জিম্মি করে রাখে। ইতিপূর্বে একই ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার দেবীদ্বার থানার গজারিয়া গ্রামের রাকিবুল ইসলামের স্ত্রী ও ছাতক উপজেলা সমবায় অফিসের এমএলএস রুজিনা আক্তার (৩০) এবং তার ভাই সিলেট সদর সমবায় অফিসের এমএলএস রাজিব সরকারকে (২৫) গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করে পুলিশ।

জানা যায়, ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার সরাইল থানার পানীশ্বর গ্রামের রমজান মিয়া দীর্ঘদিন ধরে বিশ্বনাথ উপজেলা সমাজসেবা অফিসের নিরাপত্তা প্রহরী হিসেবে কর্মরত। সেই সুবাদে স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে তিনি উপজেলা সদরের জানাইয়া রোডের তেরাবুন ভিলায় ভাড়াটিয়ে হিসেবে বসবাস করে আসছেন। প্রায় পাঁচ বছর আগে আত্মীয় ওমানপ্রবাসী আলমগীর হোসেনের সঙ্গে তার বড় মেয়ে কোহিনুর আক্তার আশার বিয়ে ঠিক করা (এনগেজমেন্ট) হয়। গত ৫ জুন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নিজ বাড়িতে কোহিনুর আক্তার আশা ও আলমগীর হোসেনের বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। বিয়ের পর স্বামী আলমগীরকে সঙ্গে নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ১৯ জুন বিশ্বনাথে বাবার বাসায় আসেন কোহিনুর। এরপর গত ৯ জুলাই সকাল ১০টার দিকে হঠাৎ করে বাসা থেকে নিখোঁজ হন। তখন বাসার আশপাশ ও আত্মীয়-স্বজনদের বাড়ি ছাড়াও বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে মেয়ে কোহিনুরের কোনো সন্ধ্যান না পাওয়ায় পরদিন ১০ জুলাই বিশ্বনাথ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন রমজান আলী। এরপর নিখোঁজ কোহিনুরকে উদ্ধারের নামে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করার অফিযোগে গত সোমবার (২০ জুলাই) রুজিনা ও রাজিবকে অভিযুক্ত করে রমজান মিয়া বাদী হয়ে বিশ্বনাথ থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলা দায়েরের পর নিখোঁজ কোহিনুর আক্তার আশার অবস্থান প্রায় নিশ্চিত হয় পুলিশ। এরপর কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ থানা পুলিশের সহযোগিতায় বিশ্বনাথ থানার এসআই ফজলুল হকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে অভিযান চালিয়ে করিমগঞ্জের শতরদরিয়া গ্রামের আব্দুর রহিমের পুত্র শাওন মিয়ার বাড়ি থেকে কোহিনুর আক্তার আশাকে উদ্ধার এবং অপহরণের অভিযোগে শাওনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ভিকটিম উদ্ধার ও অপহরণকারী শাওনকে গ্রেপ্তারের সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার এসআই ফজলুল হক বলেন, গ্রেপ্তারকৃত শাওনকে আজ দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং ভিকটিমকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে।

About bdlawnews

Check Also

বগুড়ার মহাস্থানে আবাসিক হোটেল থেকে কপোত-কপোতীসহ ১৭ জন আটক

এস আই সুমন,স্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের অভিযানে মহাস্থান বাসস্ট্যান্ড আবাসিক হোটেল নূরজাহান পার্কে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com