Home / রাজনীতি / ছাত্রলীগকে নিষিদ্ধের দাবি রিজভীর

ছাত্রলীগকে নিষিদ্ধের দাবি রিজভীর

দুর্নীতি, টেন্ডারবাজি ও চাঁদাবাজির কারণে আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ছাত্রলীগকে নিষিদ্ধ করার দাবি জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, কিছুদিন আগে তাদের নেত্রী শেখ হাসিনা বহিষ্কার করেছেন চাঁদাবাজ লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে। আমরা এই সন্ত্রাসী সংগঠনকে নিষিদ্ধ করার আহ্বান জানাচ্ছি।

মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

দেশের প্রতিটি ক্যাম্পাসে সহাবস্থান নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে রিজভী বলেন, গতকাল (সোমবার) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে ৩০ থেকে ৪০ জন জঙ্গি সন্ত্রাসী নেতাকর্মী লাঠি, রড ও ইট নিয়ে ছাত্রদলের নেতাকর্মী ও সাংবাদিকদের ওপর বর্বরোচিত হামলা চালিয়েছে। মোবাইল ছিনতাই করেছে।

তিনি বলেন, ছাত্রদল নিজেরা এপর্যন্ত যা কিছু করেছে, সবই আইনসম্মত। ছাত্রদল একটা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে নেতৃত্ব নির্ধারণ করেছে।কাউন্সিলরদের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত এই কমিটি। আইনের বিধানে, রাজনৈতিক দল বা তাদের কর্মকাণ্ড সংশ্লিষ্ট কোনও বিষয় আদালতের এখতিয়ারে পড়ে না, এমন একাধিক বার উচ্চ আদালতের রায় রয়েছে।

রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপি বা তার কোনও কর্মকর্তা বা কর্মকাণ্ডের ওপরে সহকারী জজ আদালত বা নিম্ন আদালতের কোনও আদেশ জারি বা নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার এখতিয়ার নেই মন্তব্য করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, বিএনপি আরপিও ধারার বিধিবদ্ধতাও ন্যূনতম লঙ্ঘন করেনি।

সিঙ্গাপুরের শীর্ষ ৫০ ধনীর তালিকায় বাংলাদেশের সামিট গ্রুপের মালিক মোহাম্মদ আজিজ খান রয়েছে বলে দাবি করে রিজভী আরও বলেন, তার বর্তমান সম্পত্তির পরিমাণ ৯১০ মিলিয়ন, যা বাংলাদেশি অর্থে প্রায় ৭৬৭৫ কোটি টাকা। আজিজ খান হলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী কর্নেল (অব.) ফারুক খানের ভাই। এই সাত হাজার কোটি টাকা থেকে, গত বছরেই তিনি দুই হাজার কোটি টাকা কামিয়েছেন কুইক রেন্টাল প্রকল্পের বিদ্যুৎ কেন্দ্র বসিয়ে রেখে। সামিট গ্রুপ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে পিডিবির কাছ থেকে ক্যাপাসিটি চার্জ হিসেবে দুই হাজার কোটি টাকা নিয়েছে। ক্যাপাসিটি চার্জ হিসাবে দুই হাজার কোটি টাকা নিয়ে যাওয়া একটা অবিশ্বাস্য লেভেলের লুটতরাজ।

লোক দেখানো এ অভিযানে অধরাই থেকে যাচ্ছেন মাদক ও দুর্নীতিবাজদের গডফাদাররা বলে দাবি করে বিএনপির এই নেতা বলেন, কারণ এবারের আওযামী আমলে সমগ্র বাংলাদেশটাই ডন গডফাদারদের কব্জায়।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

About bdlawnews24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com