Home / আইন পড়াশুনা / গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তির আইনজীবী নিয়োগের অধিকার ও আইনজীবীর পেশাগত স্বাধীনতা।

গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তির আইনজীবী নিয়োগের অধিকার ও আইনজীবীর পেশাগত স্বাধীনতা।

ইদানিং আইনজীবীদের নিয়ে একটা বিষয় বারংবার উচ্চারিত হচ্ছে, “অমুকের পক্ষে দাঁড়াবেন না”। এর শেষ সংস্করণ, বরগুনার রিফাত হত্যাকাণ্ডের আসামিদের পক্ষে না দাঁড়ানো আহ্বান জানিয়েছেন একজন বর্ষিয়ান রাজনৈতিক নেতা। তো বিষয়টি নিয়ে একটু আলাপ আলোচনা হওয়া দরকার।

এইযে, কোন মামলার বা কোন বিশেষ আলোচিত মামলার পক্ষে বা বিপক্ষে দাঁড়ানো বা না দাঁড়ানো নিয়ে কথা বার্তা। রাজনৈতিক নেতা, সরকারী আমলা বা অন্য কোনো ব্যক্তি বলে দিচ্ছেন অমুক মামলার আসামি বা বাদি পক্ষে যেন কোন আইনজীবী না দাঁড়ায়। আমাদের আইনজীবী মহল থেকেও অনেক সময় এই ধরনের দাবি, নির্দেশনা বা ঘোষণা আসে, অমুক মামলায় যেন কোন আইনজীবী না দাঁড়ায়। আবার এমনও হয়, কোন মামলায় কোন পক্ষের হয়ে ওকালতি করলে সমালোচনার ঝড় তোলা হয়, “এই দেখুন ইনি অমুক মামলার কুখ্যাত অমুকের পক্ষের উকিল” মিডিয়ায় ছবি সহ ঋনাত্মক শিরোনাম। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি আমাদের উকিল সমাজের অনেকের মন্তব্য কটুক্তি, ফেসবুকে নিন্দা লাইক শেয়ারের ঝড়ো হাওয়া। একজন পেশাদার আইনজীবী হিসেবে বিষয়টি নিয়ে বিশ্লেষণের ইচ্ছা পোষণ করি।

বস্তুত আইনই একজন আইনজীবীকে কোন মামলায় কোন মক্কেলের পক্ষে বা বিপক্ষে দাঁড়ানো বা না দাঁড়ানোর স্বাধীনতা দিয়েছে। এই স্বাধীনতা একজন আইনজীবীর নিরঙ্কুশ ও একছত্র স্বাধীনতা। এই স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করার কোন সুযোগ কারো নেই। লেখা সংক্ষিপ্ত করতে এবার চলে আসি আসামিদের অধিকার প্রশ্নে।

গ্রেফতার বা আটক হওয়ার পর গ্রেফতারকৃত বা আটক ব্যক্তির আইনজীবীর সাথে যোগাযোগের অধিকার বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইন বাংলাদেশ সংবিধানে রক্ষিত মৌলিক অধিকার। বাংলাদেশ সনবিধানের অনুচ্ছেদ ৩৩(১) এ বলা হয়েছে – “গ্রেপ্তারকৃত কোন ব্যক্তিকে যথা সম্ভব শীঘ্র প্রেপ্তারের কারণ জ্ঞাপন না করিয়া প্রহরায় আটক রাখা যাইবে না এবং উক্ত ব্যক্তিকে তাঁহার মনোনীত আইনজীবীর সহিত পরামর্শের ও তাঁহার দ্বারা আত্মপক্ষ সমর্থনের অধিকার হইতে বঞ্চিত করা যাইবে না।”

সর্বোচ্চ সাজার মামলার ক্ষেত্রে কোন কারণে আসামীর পক্ষে কোন আইনজীবী না থাকলে, সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচারের স্বার্থে রাষ্ট্র ওই আসামির পক্ষে আইনজীবী নিয়োগ করে, যাকে বলা হয় ‘স্টেট ডিফেন্স’ ১৮৯৮ সনের ফৌজদারী কার্যবিধির ৩৪০ ধারা মতে একজন আসামি তার পক্ষে আইনজীবী নিয়োগ তার অধিকার।

পরিশেষে বলি একটি বিচার প্রক্রিয়া সুসম্পন্ন করার জন্য, সত্য উদঘাটন করার জন্য, যুক্তিতর্কের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিতে বিজ্ঞ আদালতকে সহযোগিতা করার জন্য, ন্যায় বিচার নিশ্চিত করার জন্য, মামলার সকল পক্ষে আইনজীবী থাকতে হয়।

আইনজীবী কোন মামলায় দাঁড়াবেন কিনা এটা সম্পূর্ণ তার নিজের স্বাধীনতা, তিনি আইন, নৈতিকতা, পেশাদারিত্বের বিবেচনায় স্বীয় পছন্দে এই সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে হস্তক্ষেপ করা, বাধাগ্রস্ত করা, নিন্দা করা বা প্রভাবিত করতে চেষ্টা করা অনভিপ্রেত।

লেখকঃ কাজী হেলাল উদ্দিন, আইনজীবী, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট।

About bdlawnews

Check Also

সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধ বনাম পুলিশঃ

সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধ বনাম পুলিশঃ ………………..এস, এম নাজির আহম্মেদ। জমির মালিকানা, দখল, দখল পুনরুদ্ধার ইত্যাদি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered by themekiller.com