Home / জাতীয় / ধর্ষকদের কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে: স্পিকার

ধর্ষকদের কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে: স্পিকার

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। ধর্ষণ নিকৃষ্টতম অপরাধ। ধর্ষকদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের শপথ কক্ষে প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও মহামারীকালে বাল্যবিবাহ, লৈঙ্গিক সহিংসতা, মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক এক সংলাপে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এ কথা বলেন স্পিকার।

ইউএনএফপিএর কারিগরি সহায়তায় বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয় কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ‘এসপিসিপিডি’ প্রকল্পের আওতায় ‘কনসার্টেড রেসপন্স টু স্টপ চাইল্ড ম্যারেজ, প্রিভেন্ট জেন্ডার বেজড ভায়োলেন্স অ্যান্ড ইম্প্রুভ মেটার্নাল হেলথ ডিউরিং নেচারাল ডিজাস্টার অ্যান্ড কভিড-১৯ প্যান্ডেমিক’ শীর্ষক এ পলিসি ডায়ালগের আয়োজন করা হয়।

স্পিকার বলেন, সাম্প্রতিক ধর্ষণের ঘটনায় কঠোর আইন প্রণয়ন ও তার বাস্তবায়নের পাশাপাশি দ্রুততম সময়ের মাধ্যে ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি বলেন, এসপিসিডি প্রকল্পের অধীনে তিনটি সাবকমিটি জনসংখ্যা উন্নয়নের সাথে সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো যেমন-বাল্যবিবাহ রোধ, মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যু রোধ, যুব উন্নয়ন, কিশোরীদের অধিকার নিশ্চিতকরণে সফলতার সাথে কাজ করছে। এ উদ্দেশ্যে সংসদ সচিবালয়ের পাশাপাশি নির্বাচনী এলাকাগুলোতে সংসদ সদস্যগণের অংশগ্রহণে তৃণমূল পর্যায়ে সরাসরি মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয় যা অত্যন্ত কার্যকর।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বৈশ্বিক মহামারী কভিড-১৯ চলাকালীন বন্যাকবলিত এলাকা, হাওর-চরাঞ্চলে গর্ভবতী নারীদের প্রয়োজনীয় সেবা প্রদানের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা জরুরি। এছাড়া, প্রত্যন্ত অঞ্চলে কোন নারী নির্যাতনের শিকার হলে ন্যাশনাল রেসপন্স প্লান-এর অংশ হিসেবে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাগণ ফার্স্ট রেসপন্ডার-এর ভূমিকা পালন করে যাবতীয় আইনি সহায়তা পেতে তাদের সহযোগিতা করতে পারেন।

সম্প্রতি চালু করা ‘মাই কনস্টিটিউয়েন্সি’ অ্যাপে কভিড চলাকালীন পরিবর্তিত তথ্যসমূহ আপডেট করার মাধ্যমে এর কার্যকরিতা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে উল্লেখ করেন স্পিকার।

বাল্যবিবাহ ও জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধ-বিষয়ক সাবকমিটির আহ্বায়ক ও মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি বেগম মেহের আফরোজের সভাপতিত্বে ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব নুরুজ্জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা  ইন্দিরা বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি, সরকারী প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজ, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি আবদুল মতিন খসরু ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন।

এছাড়াও জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সেপ্পো ও ইউএনএফপিএ প্রতিনিধি ড. আশা টর্কেলসন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।বাল্যবিবাহ রোধ ও লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধ উপ-কমিটির সদস্য আরমা দত্ত মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।শিরিন আখতার, রুমানা আলী, ফখরুল ইমাম, নাহিদ ইজাহার খান, অপরাজিতা হক অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন। এসপিসিপিডি-প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক এমএ কামাল বিল্লাহ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

About bdlawnews24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com