Home / গ্রেফতার / ৩৮ দিনের সন্তানকে হত্যা করে ল্যাট্রিনের টাংকিতে ফেলার অভিযোগে মা ও কবিরাজ আটক

৩৮ দিনের সন্তানকে হত্যা করে ল্যাট্রিনের টাংকিতে ফেলার অভিযোগে মা ও কবিরাজ আটক

বি‌ডি ল নিউজ24ডেস্ক : বয়স ৩৮ দিন। নিষ্পাপ শিশু। কোন নামও রাখা হয়নি শিশুটির। কি অপরাধ ছিল তার ? এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে সবার চিন্তার ঘরে।

বগুড়ার ধুনটে নিজের নবজাতক শিশুসন্তানকে হত্যার পর ল্যাট্রিনের ট্যাংকিতে ফেলে দেন মা আদুরী খাতুন (২৫)। এমন অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। শনিবার (২৪ জুলাই) বিকেলে আদুরী খাতুনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করলে ১৬৪ ধারায় তার জবানবন্দিতে সন্তান হত্যার দায় স্বীকার করেন তিনি।

একই অভিযোগে সহযোগিতা করার অপরাধে কাছেম (৪৫) নামের এক কবিরাজকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার (২৫ জুলাই) ধুনট থানা হাজত থেকে বগুড়ার আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে কবিরাজকে।

জানা গেছে, পারধুনট গ্রামের হোসেন প্রামাণিকের ছেলে অসীমের সঙ্গে সাত বছর আগে চান্দারপাড়া গ্রামের আয়তুল্লাহ্ মন্ডলের মেয়ে আদুরীর বিয়ে হয়। তাদের দাম্পত্য জীবনে পাঁচ বছর বয়সী এক ছেলের পর এক কন্যাসন্তানের জন্ম দেন আদুরী। কিন্তু শিশুটির ফুসফুসে ফুটো রয়েছে বলে ডাক্তার জানান। সংসারের অভাব অনটন কে প্রাধান্য দিয়ে গত ১৬ জুলাই আদুরী তার এক মাস আট দিন বয়সী শিশুকে চিকিৎসা না করিয়ে বাবার বাড়ি চান্দারপাড়া গ্রামে চলে আসেন এবং বাচ্চাটিকে কবিরাজি চিকিৎসার জন্য পার্শ্ববর্তী কবিরাজ কেছেমের শরণাপন্ন হন।

চিকিৎসা নিতে থাকেন কবিরাজের, তাতে কোনো লাভ হয়নি শিশুটির। কবিরাজের হাতআন্দাজ ঔষধ খেয়ে উন্নতি তো দূরের কথা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে শিশুটি। একটা পর্যায়ে মায়ের হাতে মারা যান শিশুটি। দিক বেদিক হারিয়ে মা হয়ে ওঠেন অমানবিক। আদুরী খাতুন তার মায়ের বাড়ির ল্যাট্রিনের ট্যাংকির ঢাকনা খুলে শিশুটিকে সেখানে ফেলে দেন। এরপর শিশুকে জিনে নিয়ে গেছে বলে নাটক সাজান। এমনটি জবানবন্দি ছিল নিস্পাপ শিশুটির মায়ের। পরে স্থানীয় লোকজক অনেক খোঁজাখুঁজির পর ১৮ জুলাই বিকেলে ল্যাট্রিনের ট্যাংকি থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে তারা পুলিশে খবর দেন।

এ ঘটনায় শিশুটির বাবা অসীম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামির বিরুদ্ধে ধুনট থানায় মামলা করেন। এদিকে মামলা করার পর পুলিশ তদন্ত শেষে শনিবার শিশুটির মা আদুরীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সন্তান হত্যার দায় স্বীকার করেন তিনি। এই হত্যাকাণ্ডে সহযোগিতা এবং ভুয়া চিকিৎসা দিয়ে প্রতারণা করার অপরাধে কবিরাজ কেছেম উদ্দিনকেও গ্রেঢতার করে পুলিশ।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা জানান, প্রথমে কবিরাজের যোগসাজশে শিশুটির মা তার সন্তানকে জিনে নিয়েগেছে বলে প্রচার করতে থাকে একপর্যায়ে নিজেই নিজের শিশুসন্তানকে হত্যার দায় স্বীকার করে। এ ঘটনায় শিশুটির মা ও কবিরাজকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

 

মহাস্থান

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com