সদ্য সংবাদ
Home / রাজনীতি / অনুমতি না দিলেও ২২ অক্টোবর সমাবেশ করবে ঐক্যফ্রন্ট

অনুমতি না দিলেও ২২ অক্টোবর সমাবেশ করবে ঐক্যফ্রন্ট

অনুমতি না দিলেও আগামী ২২ অক্টোবর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদের হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশ করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ডাকসু’র সাবেক নেতৃবৃন্দদের উদ্যােগে আয়োজিত এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে একথা বলেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

‘বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে’ এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আপনাদের আর শোক সভা করার প্রয়োজন নাই। কিন্তু আমরা শোক সভা করবো। আর আমাদের সিদ্ধান্ত আমরা সেটা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে করবো। পুলিশ ঘেরাও করে রাখবে? রাখুক। আমি আপনাদের (সাংবাদিক) মাধ্যমে অনুরোধ করে রাখতে চাই, আমি আহ্বান জানাচ্ছি- ঢাকা মহানগরের যে কোটি কোটি মানুষ আছেন, আমরা যদি আপনাদের কাছে নাও যেতে পারি এবং যথেষ্ট প্রচার করতে নাও পারি। আপনারা এই কর্মসূচিতে আসেন। আর যদি অনুমতি না দেয়া হয়, যদি বাধা দেয়া হয়। এরপরও আমরা সেই কর্মসূচি পালন করবো। কারণ আবরারের মৃত্যু মানে শুধু মৃত্যু নয়। আবরারের মৃত্যু মানে একটা প্রতিবাদ।

ক্ষমতাসীন দলের দুর্নীতি, হত্যা ও গুমের তথ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, এতো অন্যায় করে যে সরকার আছে, এই সরকারের দিন শেষ। আমাদের একবার আটকাতে পারবেন, দ্বিতীয় বারও আটকাতে পারবেন, কিন্তু তিনবার আটকাতে পারবেন না।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, সরকার ভারতকে বলেছেন, যা চান তাই দেবো। শুধু আমাদের গদিতে রাখেন। এবার এই গদি ধরেই টানবো। আর হঠাৎ করে গদির পা এমন ভাবে ভেঙে যাবে যে, আর সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারবেন না। আমরা সেই আন্দোলন করবার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। আর আবরারের মৃত্যুর প্রতীক আমরা ধারণ করে এই লড়াই অব্যাহত রাখবো।

সভাপতির বক্তব্যে জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, আজকে কেউ কেউ ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করতে চান। ছাত্র রাজনীতি তো অপরাধ নয়। কারণ ছাত্র রাজনীতি না করলে রাষ্ট্রভাষা বাংলা হতো না, ছাত্র রাজনীতি না হলে এদেশের গরীব মানুষের ছেলেরা পড়ালেখা করতে পারতো না এবং এদেশ স্বাধীন হতো না। তাই অপরাধ ছাত্র রাজনীতির নয়। অপরাধ ছাত্রলীগ ও যুবলীগের। আর ছাত্র রাজনীতি কেউ বন্ধ করতে পারে নাই। কারণ ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করা যায় না।

বিচারবিভাগকে উদ্দেশ্য করে আবদুর রব বলেন, বিচার বিভাগ আইন অনুযায়ী রায় দেবেন। জামিন ও মুক্তি দেবেন। সেটা না করে প্রশাসনের নির্দেশে আপনারা রায় দিচ্ছেন। ভারতের প্রধান বিচারপতিকে কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছে। বিচারক সাহেবেরা মনে রাখবেন, একদিন সময় আসবে- এই ফ্যাসিবাদিরা বিদায় নেবে, তখন আপনাদের আসামির কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত বিএনপি নেতা আমান উল্লাহ আমান, খায়রুল কবির খোকন, নাজিম উদ্দিন আলম প্রমুখ।

About bdlawnews24

Check Also

দেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা মেনে নেওয়া হবে না: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বিদেশি রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের অবস্থানের সময় অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করে দেশের ভাবমূর্তি নষ্টের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com