Home / আন্তর্জাতিক / ইতিহাস গড়তে ইডেনে যত আয়োজন

ইতিহাস গড়তে ইডেনে যত আয়োজন

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী চান ক্রিকেটে টেস্ট ম্যাচের জনপ্রিয়তা ফেরাতে। তার সুপারিশেই ইডেন গার্ডেনে গোলাপি বলে দিনরাতের টেস্ট ম্যাচ খেলবে ভারত-বাংলাদেশ। ২২ থেকে ২৬ নভেম্বরের এই ম্যাচ ঘিরে আগ্রহের কমতি নেই ক্রিকেটপ্রেমীদের। একারণে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে টিকিটের চাহিদা।

ইডেনে একসঙ্গে ৬৭ হাজার দর্শক খেলা দেখতে পারেন। ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গল (সিএবি) প্রথম ধাপে অনলাইনে টিকিট ছেড়েছিল বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর)। মাত্র ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই তা ফুরিয়ে গেছে। যারা অনলাইনে টিকিট কাটতে পারেননি, তারা কাউন্টার সেলের অপেক্ষায় রয়েছেন।

কিন্তু, সিএবির পক্ষ থেকে এখনো নির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি কাউন্টার সেলের ব্যাপারে। এ নিয়ে ক্ষোভ জমছে ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে। কবে থেকে কাউন্টার সেল শুরু হবে, তাও নির্দিষ্ট করে বলতে পারছেন না সিএবি কর্মকর্তারা।

হাতে সময় কম। এখনো অনেক কাজও বাকি। তাই বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) সিএবি’তে ঢুকে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন।

ইতোমধ্যে দিনরাতের টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখতে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গল। সিএবির সচিব অভিষেক ডালিমায় জানিয়েছেন, ইডেনে ম্যাচ শুরুর আগে দুই দেশের জাতীয় সঙ্গীত বাজানো হবে সেনাবাহিনীর ব্যান্ডে।

চমক থাকছে আরও। দু’টি গোলাপি ম্যাচ বল আকাশ থেকে নেমে আসবে প্যারাস্যুটে করে। ওই বল তুলে দেওয়া হবে দুই দেশের অধিনায়কের হাতে। ওড়ানো হবে গোলাপি বেলুন। মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে থাকবে বিশেষ টকশো।

এছাড়া, ২০০১ সালে ইডেনে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টেস্ট জয়ী দলের তারকাদের নিয়ে হবে অনুষ্ঠান। শচীন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলী, রাহুল দ্রাবিড়, ভিভিএস লক্ষ্মণ ও অনিল কুম্বলে ওই অনুষ্ঠানে থাকবেন বলে জানিয়েছেন সিএবি সচিব।

এছাড়া চা বিরতিতে ভারতের সাবেক ক্রিকেটারদের হুডখোলা গাড়িতে মাঠ প্রদক্ষিণ করানো হবে, বাজবে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক।

প্রথম দিনের ম্যাচের শেষে থাকছে ২০০০ সালে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে আয়োজিত প্রথম টেস্টে খেলা দুই দলের ক্রিকেটারদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। সেখানে হাজির থাকবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ বিশিষ্টজনরা।

ইতোমধ্যে ইডেন গার্ডেনের ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গল (সিএবি) ও কলকাতার বাংলাদেশ উপ-দূতাবাসের মধ্যে ম্যাচের প্রস্তুতি এবং নিরাপত্তা বিষয়ে বৈঠক হয়েছে। তাতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন উপ-দূতাবাস প্রধান তৌফিক হাসানসহ অন্য কর্মকর্তারা।

সিএবির সচিব অভিষেক ডালিমায় জানান, কলকাতা একটি ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী হতে চলেছে। এই ঘটনাকে সুন্দর ও যথার্থভাবে সফল করতে তারা বদ্ধপরিকর। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বরণ করে নিতে প্রস্তুত ইডেন গার্ডেন।

উপ-দূতাবাস প্রধান তৌফিক হাসানও জানিয়েছেন, ইডেন গার্ডেনের ব্যবস্থাপনা দেখে তারা খুশি।

About bdlawnews24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com