সদ্য সংবাদ
Home / উচ্চ আদালত / বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই। দেশে যেভাবে জঙ্গি দমন করা হচ্ছে, তা অনেক উন্নত দেশও করতে পারেনি। তদন্তে যা বেরিয়ে আসবে, সে মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। হাইকোর্ট এলাকায় বিএনপির নেতা–কর্মীদের সঙ্গ পুলিশের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া এবং গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি যে সন্ত্রাস, ধ্বংসাত্মক ও ভাঙচুরের রাজনীতি করে, এ ঘটনা তা-ই প্রমাণ করে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই। দেশে যেভাবে জঙ্গি দমন করা হচ্ছে, তা অনেক উন্নত দেশও করতে পারেনি। তদন্তে যা বেরিয়ে আসবে, সে মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। হাইকোর্ট এলাকায় বিএনপির নেতা–কর্মীদের সঙ্গ পুলিশের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া এবং গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি যে সন্ত্রাস, ধ্বংসাত্মক ও ভাঙচুরের রাজনীতি করে, এ ঘটনা তা-ই প্রমাণ করে।

গ্রামীণফোনের কাছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) পাওনা দাবির প্রায় ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকার মধ্যে ২ হাজার কোটি টাকা পরিশোধ করতে নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। তবে যদি এ টাকা না দেয়া হয়, তাহলে দাবি আদায়ের ওপর হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা থাকবে না বলেও আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

রোববারপ্রধানবিচারপতিসৈয়দমাহমুদহোসেনেরনেতৃত্বাধীনআপিলবিভাগেরপূর্ণাঙ্গবেঞ্চএইআদেশদেন।

গ্রামীণফোনের আইনজীবী মোহাম্মদ মেহেদী হাসান চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তিন মাসের মধ্যে ২ হাজার কোটি টাকা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

টাকা পরিশোধের সময়সীমা বিষয়ে বিটিআরসির আইনজীবী খন্দকার রেজা-ই-রাকিব বলেন, ‘দ্রুততম সময়ের মধ্যে এ টাকা পরিশোধ করতে আপিল বিভাগ নির্দেশ দিয়েছেন।’

গত ১৪ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে শুনানিতে অর্থমন্ত্রী ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর সঙ্গে সমঝোতা বৈঠকের প্রস্তাবনা অনুযায়ী ২০০ কোটি টাকা পর্যায়ক্রমে বিটিআরসিকে দিতে সম্মতির কথা জানায় গ্রামীণফোন। তবে এর বিরোধিতা করে বিটিআরসির আইনজীবী অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আদালতকে বলেন, গ্রামীণফোনের কাছ থেকে বিটিআরসির পাওনা আদায়ের ওপর হাইকোর্টের দেয়া নিষেধাজ্ঞা আমরা স্থগিত চাই।

এর আগে গত ৩ অক্টোবর অর্থমন্ত্রী ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর সঙ্গে গ্রামীণফোনের এক সমঝোতা বৈঠকে পাঁচটি প্রস্তাব তুলে ধরা হয়। প্রস্তাবগুলো হলো :

১. দুই পক্ষ একটি কমিটি গঠন করে পাওনা পরীক্ষা অথবা পরীক্ষার পদ্ধতি বের করবে।

২. বিটিআরসি লাইসেন্স বাতিলের কারণ দর্শানোর নোটিশ ও নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করবে। অন্যদিকে অপারেটররা মামলা প্রত্যাহারের পদক্ষেপ নেবে।

৩. অর্থমন্ত্রী, টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী, এনবিআর ও বিটিআরসির চেয়ারম্যান কমিটির কার্যক্রম পর্যবেক্ষণে রাখবেন।

৪. কমিটি গঠন ও কমিটির কাজ শুরুর আগে আগামী সাত দিনের মধ্যে গ্রামীণফোন ১০০ কোটি ও পরের এক মাসের মধ্যে ১০০ কোটি টাকা বিটিআরসিকে দেবে। রবি দেবে দুই দফায় ৫০ কোটি টাকা।

৫. এসব প্রস্তাব দুই অপারেটর তাদের যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে পর্যালোচনা ও অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করবে।

About bdlawnews

Check Also

রায়ের কপির জন্য যেন ঘুরতে না হয়: রাষ্ট্রপতি

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ আরও বলেন, আমি নিজে একজন আইনজীবী হিসেবে জানি বিচার কাজ কত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered by themekiller.com