সদ্য সংবাদ
Home / ধর্ম জিজ্ঞাসা / জনগণকে ভুল বুঝানোর দিন শেষ, তাওহীদি জনতা এখন অনেক সচেতন: ফেনিতে-আজহারী

জনগণকে ভুল বুঝানোর দিন শেষ, তাওহীদি জনতা এখন অনেক সচেতন: ফেনিতে-আজহারী

সিলেটে মিজানুর রহমান আজহারী কয়েকটি মাহফিল নিষিদ্ধ করছে কাওমী আলেমদের আপত্বির কারনে, সে বিষয় বলতে গিয়ে আজহারী বলেন আমরা ভালোবাসা দিয়ে বিশ্ব জয় করব, হেরে যাবে ওদের হিংসা আর সড়যন্ত্র আর জিতে যাবে আমাদের ভালোবাসা, আমাদের ভালোবাসাকে হারিয়ে দেওয়ার মত শক্তি কারো নেই, যারা না বুজে কুরআনের মাহফিল বানচাল করতে চায় তাদের এসে দেখা উচিত, জণগনকে ভুল বাল বুজানোর দিন শেষ, তাওহীদি জনতা এখন অনেক সচেতন, কুরআন প্রেমি তাওহীদি জনতা কুরআন এবং সুন্নাহ এই দুইটাই বুজে, এই দুইটা ছাড়া কিচ্ছু বুজেনা, এই জন্য কুরআন আছে যেখানে আমরা আছি সেখানে,

সুন্নাহ আছে যেখানে আমরা আছি সেখানে, ইসলাম আছে যেখানে আমরা আছি সেখানে, এই গণজোয়ার এটা কুরআনের পক্ষের গণজোয়ার, এই গণজোয়ার এটা ইসলামের পক্ষের গণজোয়ার, এটা আটকানো যায়না, পানের পানি যখন ছুটতে শুরু করে, যতই বাঁধ দিবেন ততই পুলতে থাকে, এক সময় যারা বাঁধ দিতে আসে তাদের কে সহ ভেঙে মেচাকার করে দেয়।

এর আগে গতকাল
কওমিপন্থী আলেমদের আপত্তিতে আজহারীর মাহফিল বন্ধ করে দেয় সিলেট জেলা প্রশাসন

কওমিপন্থী আলেমদের আপত্তিতে আজহারীর মাহফিল বন্ধ করল সিলেট জেলা প্রশাসন
ড. মিজানুর রহমান আজহারীর তাফসিরুল কোরআন মাহফিল নিয়ে দু’পক্ষের উত্তেজনার মধ্যে সিলেটে মাহফিল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন। বুধবার (১৫ জানুয়ারি) বিকেলে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সিলেটের তিন উপজেলা কানাঘাট, জৈন্তাপুর ও গোইনঘাটের আলেম, জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবুল কালাম আজাদ জানান, যেহেতু তার (মিজানুর রহমান) বয়ান বিতর্ক তৈরি করছে। তাই আপাতত তিনি কোনো ওয়াজ মাহফিলে যোগ দিতে পারবেন না। পরিস্থিতি শান্ত হলে ভবিষ্যতে ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করলে প্রশাসনের অনুমতি নিতে হবে। অনুমতি দিলে ওয়াজ মাহফিলে বয়ান পেশ করতে পারবেন তিনি।

এ সময় সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদুল ইসলাম, সিলেটের পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন, দারুল উলুম কানাইঘাট মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা আলীম উদ্দিন দৌলতপুরি, হরিপুর মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা হিলাল আহমদ, হেম দারুল উলুম মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা জিল্লুর রহমান, দরবস্ত মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা আবু হানিফ প্রমুখ। এছাড়া জৈন্তাপুর ও কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট থানার ওসি উপস্থিত ছিলেন।

আগামী ২০ জানুয়ারি সিলেট কানাইঘাটের মুকিগঞ্জ বাজার জামেয়া মাঠে অনুষ্ঠেয় তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে আসার কথা ছিল আজহারীর। ওই দিন জৈন্তাপুরের দরবস্ত হাজারি সেনাগ্রাম মাঠে ও ওসমানীনগর উপজেলায় ৩টি মাহফিলে বয়ান রাখার কথা ছিল তার।

আজহারীর সিলেটে আসার এমন খবরে কানাইঘাট ও জৈন্তাপুর উপজেলার মানুষের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছিল। তাকে প্রতিহতের ডাক দিয়েছিলেন কানাইঘাট ও জৈন্তাপুরের কওমিপন্থী আলেমরা।

About bdlawnews

Check Also

ফরিদুল হক খানকে ধর্মপ্রতিমন্ত্রী করে প্রজ্ঞাপন

নতুন ধর্ম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী হিসেবে ফরিদুল হক খানের নামে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। বুধবার (২৫ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!

Powered by themekiller.com